Monday, March 1, 2021
Home রাজ্য রেলের হিন্দি নামাক্ষরে কালি,তদন্তে আরপিএফ।

রেলের হিন্দি নামাক্ষরে কালি,তদন্তে আরপিএফ।

আরপিএফ কমান্ড্যান্ট বলেন, “গোপনে এই দুষ্কর্ম করেছে। সিসিটিভি না থাকায় অপরাধী চিহ্নিত করা মুশকিল।

হিন্দিকে রাষ্ট্রীয় ভাষার তকমা দিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন কর্মক্ষেত্রে বাংলা ভাষাকে বিদায় জানানোর ষড়যন্ত্র চলছে এমন অভিযোগ তুলে কার্যত পথে নেমেছে ‘বাংলাপক্ষ’,রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে হিন্দি ভাষার বিরোধিতা করে একাধিক দপ্তরে ডেপুটেশন ও দিয়েছে তারা। ঠিক তখনই বিভিন্ন স্টেশনের নেমপ্লেটে হিন্দি ভাষায় লেখা নামের উপর কালো কালি লেপে দিচ্ছে কেউ,কিন্তু কে বা করা করছে তার কোনো হদিস নেই। তবে এই ব্যাপারে এবার নড়েচড়ে বসে মামলা দায়ের করল আরপিএফ। বালি আরপিএফের তরফ থেকে মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

এদিকে তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠন পরিচালিত কোন্নগর রেলওয়ে হকার ইউনিয়নের সভাপতি অশোক মুখোপাধ্যায় বলেন, “ভাষাগত বিভাজনের ষড়যন্ত্র চলছে।” বিদায়ী চেয়ারম্যান বাপ্পাদিত্য চট্টোপাধ্যায় তীব্র নিন্দা করে রেলকে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছে। আরপিএফ কমান্ড্যান্ট বলেন, “গোপনে এই দুষ্কর্ম করেছে। সিসিটিভি না থাকায় অপরাধী চিহ্নিত করা মুশকিল। খোঁজ খবর নেওয়ার কাজ চলছে।” পূর্ব রেলের রাজভাষা আধিকারিক গ্রেগরি টিগগা জানান, “সবাই যাতে বুঝতে পারেন, সে জন্য তিনটি ভাষা ব্যবহার হয়। এই ধরণের কাজ অনুচিত,সমস্ত ভাষায় আমাদের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা রয়েছে”।

ভাষাগত বিষয় নিয়ে রেলে বিতর্কমূলক কাজ চলছে বেশকিছু মাস ধরে। আসানসোল স্টেশন থেকে বাংলাকে বিদায় দেওয়া হয়েছিল। এরপর লিলুয়া ওয়ার্কশপে একই ভাবে বোর্ড থেকে বাংলা ভাষাকে তুলে দেওয়া হয়। এনিয়ে বাংলাপক্ষের ক্রমাগত আন্দোলনের জেরে ফের বাংলাকে ফিরিয়ে আনা হয়।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?