Saturday, October 16, 2021
Home কলকাতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে ২৪ ঘন্টা নিষেধাজ্ঞা জারি করল নির্বাচন কমিশন

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারে ২৪ ঘন্টা নিষেধাজ্ঞা জারি করল নির্বাচন কমিশন

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রচারে নিষেধাজ্ঞা।

সুইটি মন্ডল: তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রচারে নিষেধাজ্ঞা। সোমবার রাত আটটা থেকে মঙ্গলবার রাত আটটা পর্যন্ত মমতার প্রচার নিষিদ্ধ বলে জানানো হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

জাতীয় নির্বাচন কমিশনের রসে পড়লেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার রাত আটটা থেকে মঙ্গলবার রাত আটটা পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচার করতে পারবেননা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনটাই নিষেধাজ্ঞা জারি করল নির্বাচন কমিশন।

বলা হয়েছে, প্ররোচনামূলক ভাষণ দেওয়ার অভিযোগে মমতাকে পাঠানো নোটিশের জবাবে কমিশন সন্তুষ্ট না হওয়াতেই ২৪ ঘণ্টার এই নিষেধাজ্ঞা। বিজেপি চেয়েছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রচারে নিষেধাজ্ঞা আনা হোক। তবে তৃণমূলের তরফে কমিশনের এই সিদ্ধান্তের জন্য কমিশনকে বিজেপির শাখা সংগঠন বলে সমালোচনা করা হচ্ছে।

এই নিষেধাজ্ঞা নিয়ে করা মন্তব্য করেছেন তৃণমূল দলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। তার বক্তব্য ” মানুষ এর জবাব দেবে, পক্ষপাতদুষ্ট কমিশন বিজেপির শাখা সংগঠন। ভোটের বাক্সে এর জবাব দেবে মানুষ।” দলের আরও একজন মুখপাত্র বলেন “এটা গণতন্ত্রের পক্ষে কালো দিন।”

কেন এই নির্দেশ কমিশনের? ৩ এপ্রিল মমতা তারকেশ্বরের সভা থেকে ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট (আইএসএফ) এর আব্বাস সিদ্দিকীর নাম না করে মন্তব্য করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তার পরেই উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে তিনি বলেছিলেন, “সংখ্যালঘু ভোট ভাগ হতে দেব না। মনে রাখবেন বিজেপি এলে সমূহ বিপদ, সবচেয়ে বেশি আপনাদের।” কমিশনের যুক্তি, ধর্ম বা জাত পাতের ভিত্তিতে ভোট চাওয়া আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধির পরিপন্থী। কোন প্রার্থীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ প্রমাণিত হলে জনপ্রতিনিধিত্ব আইন অনুযায়ী তার প্রার্থীপদ খারিজও করা যেতে পারে। তাই নোটিশ পাঠায় নির্বাচন কমিশন।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের নির্দেশেই সিআরপিএফ এর একাংশ বিজেপির হয়ে কাজ করছে বলে অভিযোগ করেন তৃণমূল সুপ্রিমো। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “সিআরপিএফ যদি গন্ডগোল করে মেয়েদের একটা দল মিলে ওদের ঘেরাও করে রাখবে আর একটা দল ভোট দিতে যাবেন। শুধু ঘেরাও করে রাখলে ভোট দেওয়া হবেনা, তাই ভোট নষ্ট করবেন না। পাঁচজন ঘেরাও করবেন পাঁচজন জন ভোট দেবেন।” কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও করার মন্তব্যের আগে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অধিকারীক এবং কোচবিহার জেলা শাসক তথা জেলা নির্বাচনী আধিকারিক এর কাছ থেকে রিপোর্ট চেয়েছিল কমিশন। তার জন্য নোটিশও পাঠানো হয়েছিল মমতাকে।গত শনিবারই কমিশনকে সেই নোটিসের জবাব দেন মমতা। কেন্দ্রীয় বাহিনী সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য সংক্রান্ত অভিযোগের জেরে নির্বাচন কমিশনে পাঠানো শো-কজ নোটিশের জবাব দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত এর আগে মমতাকে দুটি নোটিশ পাঠিয়েছিল কমিশন। হুগলি তারকেশ্বরের গত 3 এপ্রিল মমতা বিধিভাঙ্গা মন্তব্য করেছেন বলে কমিশন একটি চিঠিতে জানিয়েছিল। এরপরে একটি জনসভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন “আমাকে দশবার শোকজ করলেও লাভ নেই একই জবাব দেব।”

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?