Monday, March 1, 2021
Home রাজ্য হাওড়া ও হুগলি বিজেপির সভামঞ্চ ভাঙচুর,অভিযুক্ত তৃণমূল।

বিজেপির সভামঞ্চ ভাঙচুর,অভিযুক্ত তৃণমূল।

মারধরের ফলে বিজেপির যুব কর্মী সুমিত রায়ের মাথা ফেটে যায়।

২১ শে নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে ততই উত্তপ্ত হচ্ছে রাজ্যের রাজনৈতিক পরিস্থিতি।সোমবার রাজ্যের একাধিক জায়গায় বিজেপি-তৃণমুল সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিলো।কোথায় বিজেপির কর্মীদের মারধরের অভিযোগ,কোথাও বা বিজেপির মঞ্চে জুতো ছোড়ার অভিযোগ আবার কোথাও বা মঞ্চ ভাঙচুর করার অভিযোগ।সোমবার আনন্দপুর ও দমদমের সঙ্গে উতপ্ত হয়ে উঠলো জগৎবল্লভপুরের শঙ্করহাঁটিও।

অভিযোগ, সোমবার শঙ্করহাটীতে বিজেপির একটি দলীয় কর্মসূচি ছিল,কিন্তু কর্মসূচি শুরু হওয়ার আগেই হামলা চালায় “তৃণমূলের গুন্ডা”বাহিনী।ভেঙে দেওয়া হলো বিজেপির মঞ্চ।কর্মীদের মারধর ও করা হয়।

সূত্রের খবর,জগৎবল্লভপুর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল পরিচালিত শঙ্করহাটী 1 নং পঞ্চায়েত প্রধান সুমিত্রা পন্ডিত নিজে গিয়ে বিজেপির মঞ্চ ভাঙচুর করে,এবং তার সঙ্গে ছিলেন শঙ্করহাটী 2 নং পঞ্চায়েতে প্রধান বরকত ও উপপ্রধান তপন চ্যাটার্জি।

এছাড়াও, জগৎবল্লভপুর১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান শেখ নুর হোসেনের (মনি) নেতৃত্বে প্রায় 400/500 “তৃনমুলের গুন্ডা বাহিনী” অতর্কিত বিজেপির ওই সভায় হামলা করে।আচমকা হামলার ফলে কিছু কর্মী পালিয়ে যায়, যারা পালতে পারেননি তাদের বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।মারধরের ফলে বিজেপির যুব কর্মী সুমিত রায়ের মাথা ফেটে গলগল করে রক্ত বের হতে থাকে।তড়িঘড়ি তাকে গ্রামীন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তার চিকিৎসা শুরু হয়।

তবে এই ঘটনার প্রতিক্রিয়া তৃণমুলের দাবি,”এইসবের সঙ্গে আমাদের কোনো সম্পর্ক নেই,গোটাটাই বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল”।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?