Monday, May 17, 2021
Home রাজ্য উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা বারাসাতে এলেন বিমান বসু।

বারাসাতে এলেন বিমান বসু।

গণতন্ত্রে গুলি করে মারার নিধানটা এত সহজ নয়,বারাসতে এসে বললেন বিমান বসু।

ডলি মল্লিক: গণতন্ত্রে গুলি করে মারার নিধানটা এত সহজ নয়,বারাসতে এসে বললেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু।চতুর্থ দফা নির্বাচনে যে অশান্তির ছবি দেখা গিয়েছে,সেই কারণে নির্বাচনের স্পেশাল অবজারভার বিবেক দুবের নির্দেশ,কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তার বিষয়ে কোন আপোষ করা হবে না,প্রয়োজনে পরবর্তী নির্বাচন গুলিতে গুলি চালানো মত কড়া সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে।

এই পরিপেক্ষিতে বিমান বসু বলেন গণতন্ত্রে গুলি করে মারার নিধানটা এত সহজ নয়,পৃথিবীর যে সমস্ত দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা আছে,সেখানে কাউকে দেখেই গুলি করে খুন করে না, ফলে গুলি করার আগে অবশ্যই জানান দিতে হবে,ব্ল্যাং ফায়ার করতে হবে টিয়ার গ্যাস মারতে হবে,তারপর গুলি করবে কিন্তু কোমরের নিচে। গুলি বুকে-পিঠে করার না,এটা সামরিক শাসন না এটা গণতান্ত্রিক শাসন,গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা এভাবে বললে হয় না।তার অপব্যবহার হলে দেশের ক্ষতি হবে গণতন্ত্র ধ্বংস হবে,স্বৈরাতন্ত্র চালু হবে।

কেন্দ্রীয় বাহিনীরা আক্রান্ত হবে কেন,যদি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হয়, তাহলে কেন্দ্রীয় বাহিনী, আধা সামরিক বাহিনীর আক্রান্ত হওয়ার প্রশ্নই আসে না।সেই প্রশ্ন যদি আসে তার দায়িত্ব তৃণমূল কংগ্রেসের আছে,বিজেপির আছে।তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপি অশান্তির পরিবেশ তৈরি করার চেষ্টা করছে।প্রথম দ্বিতীয় তৃতীয় দফায় ঘটনা ঘটেনি চতুর্থ দফায় গুলি চললো কেন সেই দাবি আমরা জানিয়েছি।

এখন সবার হাতে মোবাইল, আধা সামরিক বাহিনীর অস্ত্র কেড়ে নেওয়ার যে অভিযোগ করা হচ্ছে সেই ছবি কোথায়?প্রশ্ন তুললেন বিমান বসু।অস্ত্র কেড়ে নিচ্ছে এমন একটা ছবি নেই,বললেই হবে তার প্রমাণ দিতে হবে।সেই প্রমাণ দেয়নি।আমরা বলেছি কোন কারনে গুলি চালাতে বাধ্য হল সেটা এপেক্স কোর্টের তত্ত্বাবধানে একটা হাই পাওয়ার কমিশন নিয়োগ করা উচিত।আর যদি পরবর্তী চারটি পর্যায়ে তৃণমূল-বিজেপি পরস্পর পরস্পরের উপর আক্রমণ করে সন্ত্রাস সৃষ্টি না করে তাহলে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে বলে দাবি বিমান বসু।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?