Friday, May 14, 2021
Home আন্তর্জাতিক বাংলাদেশে একদিনে করোনায় শতাধিক মৃত্যুর রেকর্ড।

বাংলাদেশে একদিনে করোনায় শতাধিক মৃত্যুর রেকর্ড।

গত ২৪ ঘন্টায় বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে আরো ১০১ জনের|

সুইট মন্ডল: গত ২৪ ঘন্টায় বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে আরো ১০১ জনের| এখনো অবধি এটি দেশে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা| এই নিয়ে বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১০ হাজার ১৮২ জন| এছাড়াও রিপোর্টস থেকে জানা গেছে একই সময় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৪১৭ জন| এই নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৭ লাখ ১১ হাজার ৭৭৯ জন। আজ স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা.নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “গত ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্ত হন ৫ হাজার ৬৯৪ জন। এখনো পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৬ লাখ ২ হাজার ৯০৮ জন। এই সময়ে ১৮ হাজার ৭০৭
জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষা করা হয়েছে ১৮ হাজার ৯০৬টি। দেশে এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫১ লাখ ৩৪ হাজার ৪৭৮টি। গত ২৪
ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ২৩ দশমিক ৩৬ শতাংশ। মোট পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৮৬ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১০১ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৫৯, চট্টগ্রামে ২০, রাজশাহীতে ৩, খুলনায় ৫, বরিশালে ৪, সিলেটে ১ জন, রংপুরে ৬ জন ও ময়মনসিংহে ৩ জন রয়েছেন।
মৃত ১০১ জনের মধ্যে পুরুষ ৬৭ ও নারী ৩৪ জন। এদের মধ্যে ৯৪ জন হাসপাতালে এবং বাড়িতে ৭ জন মারা গেছেন। এ পর্যন্ত মোট মৃত ১০ হাজার ১৮২ জনের মধ্যে পুরুষ ৭ হাজার ৫৬৬ এবং নারী ২ হাজার ৬১৬ জন রয়েছেন।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, মারা যাওয়া ১০১ জনের মধ্যে ৬৩ জনেরই বয়স ৬০ বছরের বেশি। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ২৩ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৮ জন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ৭ জন রয়েছেন। ২০২০ সালের ৮ মার্চ বাংলাদেশে করোনা
ভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে গত বছরের ৮ মার্চে আক্রান্ত ও ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর খবরের পর থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশে
করোনা ১০ হাজার ৮১ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। এই মৃত্যুর মিছিলে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি চিকিত্‍সক, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, সেনা সদস্য, আইনজীবী, রাজনীতিবিদ, সাবেক মন্ত্রী ও সাংবাদিকরা রয়েছেন। দেশে করোনার সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ১৩৯ জন চিকিত্‍সক, ৪৮ জন সাংবাদিক ও ৯০ পুলিশ সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন। এখনো পর্যন্ত বাংলাদেশে ২ হাজার ৯১০ জন চিকিত্সক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ১ হাজার ৯৯৮ জন নার্স এবং ৩ হাজার ২৯৫ জন
স্বাস্থ্যকর্মীও আক্রান্ত হয়েছেন এই সময়ের মধ্যে। তবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৩৯ জন চিকিত্‍সক মারা গেছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দ্বিতীয় দফায় করোনা ২০ হাজার ২৯১ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন। ডিএমপিতে ৩ হাজার ৪১৩ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন। করোনার সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে এখনো পর্যন্ত ৯০ জন পুলিশ সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন। তারপরেও পুলিশ সাধারণ মানুষের নিরাপত্তায় কাজ করে যাচ্ছে। কয়েক মাস সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার ঊর্ধ্বগতিতে থাকার পর অনেকটা নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। চলতি বছরের শুরুতে করোনাভাইরাসের প্রকোপ অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকলেও মার্চ মাস থেকে তা শুধুই বাড়ছে। বিশেষজ্ঞরা এটাকে বাংলাদেশে করোনার ‘দ্বিতীয় ঢেউ’ বলছেন। করোনা সংক্রমণ মারাত্মক আকার ধারণ করায় গত বুধবার থেকে এক সপ্তাহের সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করেছে বাংলাদেশের সরকার।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?