Thursday, February 25, 2021
Home রাজ্য পুরুলিয়া-বীরভূম-বাঁকুড়া বেড়াতে যাওয়ার নামে যুবককে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন,তদন্তের দাবিতে মৃতদেহ রেখে পথ...

বেড়াতে যাওয়ার নামে যুবককে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন,তদন্তের দাবিতে মৃতদেহ রেখে পথ অবরোধ পরিবারের।

মৃতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত তিন বন্ধুর খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

নরেশ ভকত ,বাঁকুড়াঃ সঠিক তদন্তের দাবীতে রাস্তায় মৃতদেহ রেখে পথ অবরোধ পরিবারের ও গ্রামবাসীদের।ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার সারেঙ্গায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বিক্রমপুর গ্রামের অরুনাভ দূলে এবং তার তিন বন্ধু মিলে একটি গাড়িতে করে ঘুরতে যাচ্ছে বলে বেরোয় যাওয়ার সময় তারা মেদিনীপুর যাচ্ছে বলে অরুণাভের বাড়িতে জানিয়েছিল।

সেদিন রাত্রিবেলায় অরুনাভ দূলের পরিবারের লোক খবর পান মেদিনীপুরের কতোয়ালী থানার ধর্মা এলাকায় একটু পথ দূর্ঘটনা ঘটেছে।খবর পেয়ে অরুনাভ দূলের বাড়ির লোক সেখানে গিয়ে দেখেন অরুনাভ দূলে মৃত।
কিন্তু এই ঘটনাকে নিছক পথ দূর্ঘটনা বলে মানতে নারাজ মৃতের পরিবার ও আত্মীয়রা।

তাদের অভিযোগ,’অরুনাভকে বাড়ি থেকে তিনজন ফোন করে ডেকে নিয়ে যায়। অথচ যখন দূর্ঘটনা ঘটে তখন সেই গাড়িতে অরুনাভ একাই ছিল!বাকি তিন জন সেই সময় গাড়ীতে ছিল না, যার গাড়ি সেও গাড়িতে ছিল না বলেই দাবী পরিবারের।

মৃতের পরিবার ও আত্মীয়দের আরো অভিযোগ,’বেরোনোর সময় অরুনাভ এবং তিন বন্ধু মিলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেল,আর একজনের দূর্ঘটনা ঘটলো,বাকি তিনজন তারপর থেকে নিখোঁজ হয়ে গেল!তারা হাসপাতালে পর্যন্ত ণনিজেদের বন্ধুকে দেখতে যায়নি,এমন কি দূর্ঘটনার কথাও তারা পরিবারকেও জানানো হয়নি,এমনটা হয় কখনো?।

অরুণাভর পরিবারের অভিযোগ,’সম্পূর্ণ চক্রান্ত করে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। যারা সেদিন অরুনাভর সাথে গিয়েছিল অবিলম্বে তাদেরকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে সঠিক তদন্ত করুক তাহলেই আসল সত্য বেরিয়ে আসবে’।

এমনই দাবি নিয়ে শনিবার সন্ধ্যা প্রায় ৭.৩০ মিনিট নাগাদ বাঁকুড়ার সারেঙ্গা বামুনডিহা রাস্তার উপর অরুণাভর মৃতদেহ রেখে পথ অবরোধ করেন পরিবারের লোক ও গ্রামবাসীরা।

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে আসে সারেঙ্গা থানার পুলিশ এবং প্রশাসনের দিক থেকে পূর্ণাঙ্গ তদন্তের আশ্বাস দেওয়া হয় মৃতের পরিবারকে। পুলিশের আশ্বাসে অরুনাভের মৃতদেহ রাস্তা থেকে সরিয়ে অবরোধ তুলে নেয় গ্রামবাসীরা।

শেষ সংবাদ অনুযায়ী, অরুনাভের মৃতদেহ সৎকার করার জন্য পরিবারের লোকেরা স্থানীয় কংসাবতী নদীর তীরে শশ্মানে নিয়ে গিয়ে মৃতদেহ দাহ করেন।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?