Saturday, May 15, 2021
Home রাজ্য দলীয় নির্দেশ অমান্য, সায়ন্তন বসুকে শো-কজ দিলীপের।

দলীয় নির্দেশ অমান্য, সায়ন্তন বসুকে শো-কজ দিলীপের।

একই মন্তব্য করেও ছাড় বাবুল ও অগ্নিমিত্রার।প্রশ্নঃ উঠছে তাহলে কি জিতেন্দ্রকে দলে টানতে দিলীপের আশাভঙ্গ হওয়ার শাস্তি সায়ন্তনের এই শোকজ?

আসানসোলের তৃনমুল পুরপ্রধান জিতেন্দ্র তিওয়ারি বিজেপিতে যোগদান নিয়ে দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসুর মন্তব্য মোটেই ভালভাবে নেননি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ । সায়ন্তন যে মন্তব্য করেছে তা ‘দলবিরোধী’ বলেই মনে করছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর সেই কারণে শোকজের মুখে সায়ন্তন বসু । মঙ্গলবার তাঁকে শোকজের চিঠি পাঠাল রাজ্য বিজেপি। ৭ দিনের মধ্যে জবাব তলব করা হয়েছে। একই বিষয়ে মন্তব্যের জন্য আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মাকেও শোকজ করা হয়েছে।

দলের সঙ্গে সাময়িক মনোমালিন্যের জেরে আসানসোলের পুরপ্রশাসক তথা পাণ্ডবেশ্বরের তৃণমূল বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি দল ছেড়েছিলেন, কিন্তু ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই মনোমালিন্য মিটে যাওয়ায় তিনি তৃণমূলেই থাকছেন বলে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানান। তবে এটুকু সময়ের মধ্যেই তাঁকে নিয়ে গেরুয়া শিবিরে তুমুল জল্পনা শুরু হয়। বঙ্গ বিজেপির অন্যতম নেতা সায়ন্তন বসু-সহ বাবুল সুপ্রিয়,অগ্নিমিত্রা পল ও ছিলেন জিতেন্দ্রর বিপক্ষে। সায়ন্তন বসু সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়েছিলেন, জিতেন্দ্রকে দলে নেওয়া ঠিক হবে না। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে তিনি এ বিষয়ে কথা বলবেন।কিন্তু তার এই সাংবাদিক বৈঠক পার্টি ভাল চোখে নেয়নি। তাই তাঁকে শোকজ করেছে বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব।

অথচ জিতেন্দ্রকে বিজেপিতে নেওয়া নিয়ে এর চেয়েও বেশি বিরোধিতার সুর শোনা গিয়েছিল সবার প্রথমে এর বিরোধিতায় সরব হয়েছিলেন বিজেপি মহিলা মোর্চা সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পল। অথচ একই ইস্যুতে তাঁরা ছাড় পেয়ে গেলেন। ফলে প্রশ্ন উঠছে, প্রকাশ্য মন্তব্যে শুধুই কি দলবিরোধিতা নাকি জিতেন্দ্রকে দলে টানতে দিলীপের আশাভঙ্গ হওয়ার শাস্তি সায়ন্তনের এই শোকজ?

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?