Saturday, October 16, 2021
Home রাজ্য পুরুলিয়া-বীরভূম-বাঁকুড়া তৃনমূলের দলীয় কার্য্যালয় ভাঙচুর,অভিযুক্ত বিজেপি

তৃনমূলের দলীয় কার্য্যালয় ভাঙচুর,অভিযুক্ত বিজেপি

দলীয় কার্য্যালয়ের সঙ্গে দলীয় সমর্থকদেরও বাড়ি ভাঙচুর সহ বাড়ির মহিলাদের হেনস্থা করার অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে।

সুইটি মন্ডল,বাঁকুড়া -ভোট পরবর্তী হিংসাকে কেন্দ্র করে ফের উত্তেজনা ছড়াল বাঁকুড়া জেলার পাত্রসায়র থানার বেলুট রসুলপুর এলাকায়। তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর ও এক তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে তাণ্ডব চালানোর অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। শুক্রবার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,বৃহস্পতিবার রাতে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা বেলুট রসুলপুর এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় পাশাপাশি সুপ্রিয় চক্রবর্তী নামের এক তৃণমূল কর্মীর বাড়িতেও তাণ্ডব চালায় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা ও তাকে মারধর করতে গেলে সুপ্রিয় চক্রবর্তীর বোন দাদা কে বাঁচাতে গেলে তার হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত লাগে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয় ।

ঘটনা প্রসঙ্গে সুপ্রিয় চক্রবর্তী জানিয়েছেন,”এদিন হাটতলায় বসে ছিলাম, সেসময় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা আমার ওপর চড়াও হলে আমি বাড়ি চলে আসি এবং ওরা আমার বাড়িতে এসে তাণ্ডব চালায় ও আমাকে মারধর করে এবং সেই সময় আমাকে বাঁচাতে গেলে আমার বোনের হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত লাগে।”

বেলুট রসুলপুর পঞ্চায়েত প্রধান তাপস বাড়ি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানান,”অন্যান্য দিনের মতো গতকালও দলীয় কার্যালয়ে আমাদের কর্মীরা বসেছিল সেই সময় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা পার্টি অফিসে ভাঙচুর করে ও দলীয় কর্মীদের মারধর করে বলে ও সুপ্রিয় চক্রবর্তীর বাড়িতে তাণ্ডব চালায়।”

অপরদিকে বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি ও সোনামুখী বিধানসভার তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী শ্যামল সাঁতরা বলেন,”বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর ও তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে তাণ্ডব চালায়।” এছাড়াও তিনি বলেন,”বিজেপি বুঝে গেছে বাংলায় তারা কোনভাবেই ক্ষমতায় থাকছে না তাই এলাকায় একটি অশান্তির বাতাবরণ তৈরি করে মানুষকে বিভ্রান্তি তৈরি করার চেষ্টা করছে।”

যদিও বিজেপির বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে বিজেপি নেতৃত্ব। বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলার ভারতীয় জনতা মজদুর সেলের বিজেপি সভাপতি বাপি হাজরা বলেন,”তৃণমূল কংগ্রেস এখন বিলুপ্ত হয়ে গেছে তাই তারা নাটক করে সংবাদ শিরোনামে আসতে চাইছে নিজেদের মধ্যে মারপিট করে বিজেপির ওপর দায় চাপানোর চেষ্টা করছে।” তবে এই ঘটনার সঙ্গে কোনোভাবেই বিজেপি জড়িত নয় বলে তিনি দাবি করেন।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?