Sunday, April 18, 2021
Home রাজ্য পুরুলিয়া-বীরভূম-বাঁকুড়া ডাইনী সন্দেহ গ্রাম ছাড়া ৮ মাস ধরে ১২ জন সদস্য পথের ধারে...

ডাইনী সন্দেহ গ্রাম ছাড়া ৮ মাস ধরে ১২ জন সদস্য পথের ধারে ,গ্রাম ঢুকতে না পারলে দিতে পারবে না বিধানসভা ভোট।

এক মহিলাকে ডাইনি সন্দেহ গ্রাম ছাড়া করেছে এলাকার প্রতিবেশীরা।

সুইটি মন্ডল: বোলপুর থানার অন্তর্গত মূলুক গ্রামের ততার পুকুর কলোনির মনিকুন্ড গ্রামের বাসিন্দাদা আদিবাসী সম্প্রদায়ের এক মহিলাকে ডাইনি সন্দেহ গ্রাম ছাড়া করেছে ওই এলাকার প্রতিবেশীরা। বিগত ৮ মাস ধরে তাথা জঙ্গল ও রাস্তার ধারে দিন কাটাচ্ছে। এদিন বোলপুর মহকুমাশাসকের কার্যালয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করলেন। সঙ্গে ছিলেন পশ্চিমবঙ্গে আদিবাসী গওতার বোলপুর শান্তিনিকেতনের সভাপতি শিবু সরেণ।

নির্যাতিতা মহিলা জানান যে, “বিগত ৮ মাস ধরে আমার পরিবারের ১২ জন্য সদস্য ভিটে মাটি ছাড়াএর আমার তিন ছেলের বৌমা রয়েছে। ও তাদের ৪ সন্তান সহ দুই কন্যা সন্তান আছে। ওই ছেলে দের পলিথিন জলে মুড়ি খাওয়াছি। একধিক বার বোলপুর থানাতে জানানো হয়েছিল কিন্ত কোনো সুরহা পাই নি আমদের পরিবার। পুলিশ শুধু বলছে দেখছি। স্থানীয় প্রশাসন কে জানিয়ে ছি তাতে কিছু হয় নি। শেষ মেষ বোলপুর মহকুমাশাসক দপ্তরে অভিযোগ দাখিল করলাম। যদি আমদের গ্রামে না ফেরানো হয় তাহলে ভোট দিতে পারবো না।”

অপরদিকে আদিবাসী গাওতা বোলপুর শান্তিনিকেতন সভাপতি শিবু সরেণ। এই নির্যাতিত পরিবারের ১২ জন্য সদস্য ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছে ব্যাপক ভাবে গ্রাম ছাড়ার কারণে কাজের অভাব সেই কারণে না খেতে পেয়ে জঙ্গল আর রাস্তায় দিন কাটাচ্ছে। সবচেয়ে দুঃখের বিষয় ওই পরিবারের ২ কন্য সন্তান ও পুত্র সন্তান আছে চারজন না বালক বয়স মাত্র ৭-৮ ।আর ওই মহিলার তিন ছেলে আছে সঙ্গে স্ত্রী আছে। মোট ১২ জন্য সদস্য ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছে।

কুসংস্কারের দাপটে কেন্দ্র সরকার যেখানে ডিজিটাল ইন্ডিয়া বলছে রাজ্য সরকার আদিবাসী দের জন্য উন্নয়ন করে বলে যাচ্ছেন। ভোট ব্যাংক এ ব্যবহৃত করেছে আদিবাসী সমাজ কে। কিন্ত পুলিশ ও প্রশাসন কোনো ভাবে সহয়তা করেছেনা। একটি মধ্যযুগীয় বর্বরতার স্বীকার ওই আদিবাসী সম্প্রদায় মহিলা। তাকে সন্দেহ করা হচ্ছে ডাইনী, সেই ভিত্তিতে উনার পরিবারের সদস্যরা কষ্টের মুখে।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?