Thursday, March 4, 2021
Home আন্তর্জাতিক ট্রাম্পের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিলেন মার্ক জুকারবার্গ !

ট্রাম্পের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিলেন মার্ক জুকারবার্গ !

শেষ ২৪ ঘণ্টায় যা যা ঘটনা ঘটেছে আমেরিকাতে তা মানা যায় না।

মার্ক জুকারবার্গ নিজে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানালেন,
ট্রাম্প ব্যবহার করতে পারবেন না ফেসবুক।অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হলো ডোনাল্ড ট্রাম্প এর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট,একই সঙ্গে বন্ধ করে দেওয়া হলো ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টও।

তাঁর উস্কানিমূলক মন্তব্যের পরেই বুধবার ওয়াশিংটন ক্যাপিটালে হামলা চালিয়েছেন ট্রাম্প ভক্তরা। এই ঘটনায় স্তম্ভিত গোটা বিশ্ব। ওয়াশিংটনে জরুরি অবস্থা জারি হয়েছে। এমত অবস্থায় ট্রাম্পের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করল ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম । এই প্ল্যাটফর্মগুলি থেকে তাঁর অ্যাকাউন্ট সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল প্রথমে। বলা হয়েছিল আগামী ২৪ ঘণ্টা কোনও কিছুই তিনি পোস্ট করতে পারবেন না।

ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে এই মাধ্যমগুলিতে দিনের পর দিন প্রমাণ ছাড়াই নানা মন্তব্য করে গিয়েছেন ট্রাম্প। সেখান থেকেই ছড়িয়েছে দাবানল এর মতো হিংসার আগুন। কিন্তু দিন ভর গোটা পরিস্থিতির উপর নজর রেখে এবার আরও কড়া পদক্ষেপ নিল ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুকের কর্ণধার মার্ক জুকারবার্গ এবার বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়েছেন যে, শেষ ২৪ ঘণ্টায় যা যা ঘটনা ঘটেছে আমেরিকাতে তা মানা যায় না। ডোনাল্ড ট্রাম্প আর যেকদিন ক্ষমতায় আছেন তাতে তিনি ক্ষমতার অপব্যবহার করতে পারেন। এবং দেশের নতুন সরকার গঠনে বাঁধার সৃষ্টি করতে পারেন। উনি এই সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে মানুষকে উস্কানি দিয়েছেন। যা দেশ বিদেশের মানুষকে ভাবিয়েছে। তাই আমরা ফেসবুক থেকে তাঁর সমস্ত স্টেটমেন্ট গত কাল সরিয়ে দিয়েছি। কারণ আমাদের মনে হয়েছে ভবিষ্যতে আবার এর থেকে হিংসা ছড়াতে পারে। আমাদের এখন এটাই ভাবতে হবে যাতে বাকি ১৩ দিন কোনো হিংসা না ছড়ায়।”

এছাড়াও জুকারবার্গ আরও জানান, ” বেশ কিছু বছর ধরে ট্রাম্প আমাদের সমস্ত নিয়ম মেনেই ফেসবুক ব্যবহার করেছেন। ট্রাম্প আগেও আমাদের মাধ্যমে অনেক পলিটিকাল কথা লিখেছেন। আমরা অনেক কিছুই ছাড় দিয়েছিলাম কারণ আমাদের মনে হয়েছিল মানুষের রাজনৈতিক মতাদর্শ বা বাকস্বাধীনতা থাকা উচিত। কিন্তু যদি তা অন্যের বা দেশের ক্ষতি করে তবে তা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। তাই এই পোস্ট সরাতে এবং ট্রাম্পকে ব্যান করতে বাধ্য হচ্ছি। আপাতত তাঁর অ্যাকাউন্ট ফের চালানোর অনুমতি দেওয়া হবে কিনা, তা নিয়ে ভাবা হবে। আপাতত আগামী দু’সপ্তাহের জন্য তো ব্লক থাকছেই। এর পর ভাবা হবে বিষয় নিয়ে।” ফেসবুকের পথে হেঁটেই আপাতত ট্রাম্পের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টও বন্ধ থাকছে। ট্যুইটার থেকেও সরেছে ট্রাম্পের অ্যাকাউন্ট।

উল্লেখ্য,এবারের মার্কিন নির্বাচনে ট্রাম্পের ভাগ্যে জুটছে ২৩২টি ভোট আর বাইডেন পেয়েছেন ৩০৬টি ভোট। অথচ যে দিন থেকে ভোটগণনা এবং নির্বাচনী ফলাফল সামনে এসেছে ট্রাম্প কারচুপির অভিযোগ তুলে এসেছেন। একাধিক মামলা করে বিদায়ী প্রেসিডেন্ট খুব একটা কিছু করে উঠতে পারেননি। এর পরেই বুধবারের একটি জনসভায় ট্রাম্প জিগির তোলেন, আমরা পিছু হটব না। মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলি বলছে, এরপরেই রাস্তায় নেমে পড়েন ট্রাম্প সমর্থকরা। পরে অবশ্য তাদের শান্ত হওয়ার কথা বলেছিলেন ট্রাম্প ট্যুইটারে। ছোট ভিডিও শেয়ার করে তিনি লেখেন, গো হোম। ভক্তরা তাঁর কথা শোনেনি। কিছুতেই আটকানো যায়নি তাঁদের। ক্যাপিটাল বিল্ডিং আক্রমণের পর পরিস্থিতি সামাল লেগে গিয়েছে ৪ ঘণ্টা। এই মুহূর্তে সেনেটাররা দাবি তুলছেন ট্রাম্পের ইমপিচমেন্টের। ওয়াশিংটনে ১৫ দিনের জরুরি অবস্থা জারি হয়েছে।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?