Wednesday, March 3, 2021
Home রাজ্য পুরুলিয়া-বীরভূম-বাঁকুড়া জন্ম ভিটেয় সাড়ম্বরে পালিত 'দেবী সারদা' মায়ের ১৬৮ তম জন্মতিথি।

জন্ম ভিটেয় সাড়ম্বরে পালিত ‘দেবী সারদা’ মায়ের ১৬৮ তম জন্মতিথি।

জয়রামবাটি মাতৃমন্দিরে সারদা মায়ের ১৬৮ তম জন্মতিথি পালিত হল।

নরেশ ভকত, বাঁকুড়াঃ করোনা বিধিনিষেধ মেনে মঙ্গলবার জয়রামবাটি মাতৃমন্দিরে সারদা মায়ের ১৬৮ তম জন্মতিথি পালিত হল। এদিন ভোর থেকে মাকে প্রণাম জানাতে কলকাতা, হাওড়া সহ দূরদূরান্তের ভক্তর দল জয়রামবাটিতে ছুটে আসেন।

তবে করোনা পরিস্থিতির জন্য রামকৃষ্ণ-সারদা মিশনের অতিথি নিবাসগুলি বন্ধ থাকায় মানুষ আগের দিন থেকে এসে থাকতে পারেন নি। মায়ের জন্মতিথি উপলক্ষে এদিন সকালে বিশেষ পুজোর আয়োজন করা হয়েছিল।
তাছাড়া সকালে মাতৃবন্দনা করে মিশনের মহারাজ থেকে আশ্রমিকরা নামগান করেন।

মাতৃমন্দিরের নিয়ম মেনে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় মন্দিরের দরজা খোলা হয়। সেখানে আসা প্রত্যেক দর্শনার্থীদের ওই গেটেই হাতে স্যানিটাইজার নিয়ে মন্দিরে প্রবেশ করতে হয়। মায়ের মন্দিরে ঢোকার ক্ষেত্রেও দূরত্ববিধি মেনে দর্শনার্থীদের প্রবেশাধিকার মেলে।

করোনা প্রকোপ শুরু হওয়ার পর থেকেই
মাতৃমন্দিরে ভক্তদের জন্য দুপুরে বসে ভোগ খাওয়ার ব্যবস্থা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এদিন মায়ের জন্মতিথিতেও সেই নিয়ম বলবত রাখা হয়েছে। এদিন জয়রামবাটি মাতৃমন্দিরের মহারাজ স্বামী যোগেশ্বরানন্দজী বলেন ‘মায়ের ১৬৮ তম আবির্ভাব তিথিতে আজ প্রচুর ভক্ত সমাগম হয়েছে। এখনো আমরা একটা ভয়ঙ্কর সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। এর সমাধান এখনো কিছু বেরোয়নি। তবে আশা করছি দু’এক মাসের মধ্যে সমাধান চলে আসবে। তাই এখনো আমাদের সতর্কতা মেনে চলতে হচ্ছে। আমাদের অতিথি নিবাসগুলি বন্ধ রাখার

‘পাশাপাশি মায়ের মন্দিরে ভক্তদের বসিয়ে প্রসাদ খাওয়ানোর ব্যবস্থাও বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে মন্দিরের প্রধান ফটকের কাছে শুকনো প্রসাদ রাখা থাকছে। ভক্তরা মাকে দর্শন করে ওই প্রসাদ নিতে পারেন। আমরা ভক্তদের কাছে আবেদন রাখছি করোনার বিধিনিষেধ মেনে যত অল্প সময়ের মধ্যে সম্ভব মায়ের দর্শন করে নিজেদের গন্তব্যে ফিরে যেতে’।

এদিন সারদা মায়ের ১৬৮ তম জন্মতিথি উপলক্ষে একটি বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আশ্রম কর্তৃপক্ষ। যেখানে সারদা দেবীর জীবন নিয়ে ইংরাজি ও বাংলায় ভাষণ দেন সহ-সংঘাধ্যক্ষ শ্রী গৌতমানন্দ মহারাজ।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?