Monday, March 1, 2021
Home রাজ্য কৃষি আইনের বিরোধিতা,জিও মার্টের শাখা বন্ধ করে দিল বামেরা।

কৃষি আইনের বিরোধিতা,জিও মার্টের শাখা বন্ধ করে দিল বামেরা।

ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে তৃণমুল ও বিজেপি।

কেন্দ্রীয় সরকারের ৩ বিতর্কিত কৃষি বিল বাতিলের দাবি তে গত 1 মাসের ও বেশি সময় ধরে দিল্লি সীমান্তে ধর্নাতে বসেছে গোটা দেশের প্রায় 15 লক্ষের ও বেশি কৃষক।তাদের মূল বক্তব্য “এই বিলে আদানি আম্বানিদের ই সুবিধা হবে,যার ফলে গোটা দেশের অনেক জায়গাতেই ক্ষোভের মুখে পড়েছে জিও”।

সেই কৃষক আন্দোলনের রেশ এসে পড়লো এবার উত্তরবঙ্গে। আজ জলপাইগুড়িতে কৃষি আইনের বিরোধিতায় নতুন শপিং মল বন্ধ করে দেয় বামেরা। পাশাপাশি কলকাতায় রানি রাসমনি রোডে অবস্থান বিক্ষোভ চালায় বাম ও কংগ্রেস। এই নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষ করেছে বিজেপি। বছর শেষ হতে চলল। কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে আন্দোলন চলছে দিল্লি-হরিয়ানা সীমানায়। তার আঁচ পড়েছে এ রাজ্যেও। কলকাতা থেকে জলপাইগুড়ি, মোদি সরকারের কৃষি আইনের বিরোধিতায় চলছে আন্দোলন। মঙ্গলবার জলপাইগুড়ির মিউনিসিপ্যালিটি মার্কেটে এক বহুজাতিক সংস্থার শপিং মলের উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল। সকাল ৯টার সময় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরু হওয়ার আগে জেলা সিপিএমের নেতা-কর্মীরা গিয়ে মল বন্ধ করে দেন। কর্মীদের বাইরে চলে যেতে হাতজোড় করে অনুরোধ করেন বাম কর্মীরা। পুলিশ গিয়ে আন্দোলনকারীদের বুঝিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। কিন্তু লাভ হয়নি। সিটুর জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি জিয়াউল আলম বলেন, দিল্লিতে কৃষকরা ঠাণ্ডার মধ্যে আন্দোলন করছে। মোদির কৃষি আইন প্রত্যাহার করতে হবে। ন্যয্যমূল্য পাচ্ছেন না কৃষকরা।

এদিকে কেন্দ্রের কৃষি আইন বিরোধী আন্দোলনকে সমর্থন করলেও শপিং মল বন্ধ করে দেওয়ার মতো পদক্ষেপের বিরোধিতাই করেছে তৃণমূল। দলের মুখপাত্র ওমপ্রকাশ মিশ্র বলেন, সারা দেশে বিরোধী আন্দোলন চলছে, এটার প্রতিবাদ আরও জোরদার হওয়া উচিত। কিন্তু এই ধরনের আন্দোলনকে সমর্থন করি না, এতে ভাবমূর্তি নষ্ট হয়, শিল্প বিরোধী এই আন্দোলন সমর্থনযোগ্য নয়।

অপরদিকে জিও মার্টের শাখা বন্ধ করে দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে বামেদের আক্রমণ করে জলপাইগুড়ি বিজেপির সহ সভাপতি অলোক চক্রবর্তী বলেন, বামেরা ৩৪ বছর শাসন করেছে, শিল্প ধ্বংস করেছে, এরা শিল্প চায় না, এরা শুধু টাকা কামিয়েছে ৩৪ বছর ধরে। যদি এই মলটাই বন্ধ করতে হয়, তাহলে সব মলই বন্ধ করে দিক। আমরা প্রশাসনকে বলেছি ব্যবস্থা করতে, নাহলে আমরাও আন্দোলনে নামতে বাধ্য হব। কৃষি আইনের বিরোধিতায় এদিন কলকাতার রানি রাসমনি রোডে, ১৬টা বাম দল ও কংগ্রেস অবস্থান কর্মসূচি চালায়।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?