Thursday, February 25, 2021
Home রাজ্য পুরুলিয়া-বীরভূম-বাঁকুড়া কল্যাণের নিশানায় শুভেন্দু, বাদ গেল না রাজ্যপাল জাগদীপ ধানকরও।

কল্যাণের নিশানায় শুভেন্দু, বাদ গেল না রাজ্যপাল জাগদীপ ধানকরও।

মেজিয়ার তৃণমূলের জনসভা থেকে শুভেন্দুকে একহাত কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কটাক্ষ থেকে রেহাই পেলেন না রাজ্যপালও।

নরেশ ভকত, বাঁকুড়াঃ একসময় দলের অন্যতম খ্যাতি প্রাপ্তি করা নেতা এখন বিজেপিতে।তবে বিজেপিতে যাওয়ার আগে ও পরে গঙ্গা দিয়ে অনেক জল বয়েছে।একসময়কার বিস্বস্ত নেতা এখন ঘাসফুলের গড়ে “মীরজাফর ও গাদ্দার” নাম পিরিচত।তবে এ নিয়েই বিতর্ক কম হয়নি।নতুন বছরের প্রথম দিনই তৃণমূলের প্রতিষ্টা দিবস,আর সেদিন থেকেই নতুন উদ্দীপনায় ঘাসফুল।দলীয় যুবকর্মীদের ‘জোশ’ বাড়াতে প্রত্যেক বুথে বুথে চলছে কর্মিসভা।

রবিবার বাঁকুড়ার মেজিয়ার শ্রীনগর কলোনিতে ফের ঝাঁঝালো মন্তব্য কল্যাণ বন্দোপাধ্যায়ের,এদিন তিনি বলেন-“আমাদের দলের কিছু মীরজাফর নেতারা এখন বিজেপিতে গিয়ে খ্যাপা ষাঁড়ের মতো দৌড়ে বেড়াচ্ছে, আর এই খ্যাপা ষাঁড়েদের কোন ট্রিটমেন্ট নেই”। তৃণমূল থেকে সদ্য  বিজেপিতে যাওয়া বেশ কিছু নেতাদের ঠিক এই ভাষাতেই তীব্রভাবে কটাক্ষ করলেন শ্রীরামপুরের সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। বাঁকুড়ার মেজিয়ার শ্রীনগর কলোনিতে তৃণমূলের এক জনসভায় উপস্থিত হয়ে তিনি এই মন্তব্য করেন।

বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে স্বামী বিবেকানন্দ ও রামকৃষ্ণের সঙ্গেও তুলনা করতে ছাডলেন না তৃণমূলের এই সাংসদ।  তিন-তিনটে দপ্তরের মন্ত্রী,তিনখানা চেয়ারম্যান,জেড ক্যাটাগরি নিরাপত্তারক্ষী, তবুও বলে আমার কোনো লোভ ছিলো না। আর এত কিছু পেয়েও আজ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় খুবই খারাপ তাই না?খারাপ তো লাগবেই মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারটা যে তাকে ছেড়ে দেয়নি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে  খারাপ লাগবেই । এই ভাষাতেই বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী কে তীব্রভাবে কটাক্ষের সুর শোনা গেল কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায়ের গলায়।

এদিন জনসভা থেকে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরকেও সাদা হাতি বলে মেজিয়ার জনসভা থেকে কটাক্ষ করেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?