Thursday, February 25, 2021
Home রাজ্য "আত্মনির্ভর ভারতের সূচনা কবিগুরুর কাছ থেকেই", বিশ্ব বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে...

“আত্মনির্ভর ভারতের সূচনা কবিগুরুর কাছ থেকেই”, বিশ্ব বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে মোদি।

বিশ্বভারতী মানেই গুরুদেবের চিন্তন, কবিগুরুর বিশ্বভারতী দর্শনের স্বার্থক রূপ..", বললেন প্রধানমন্ত্রী।

বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আজ ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে যোগ দিলেন প্রধানমন্ত্রী তথা বিশ্বভারতীর আচার্য নরেন্দ্র মোদি।

ভার্চুয়াল বার্তায় যোগ দিয়ে তিনি বললেন, ‘ গৌরব দাও, বিশ্বভারতীর শতবর্ষে এটাই দেশের প্রার্থনা। দেশের পক্ষে বিশ্বভারতীর শতবর্ষ গৌরবের বিষয়।’‘বিশ্বভারতী মানেই গুরুদেবের চিন্তন, দর্শনের স্বার্থক রূপ। কবিগুরুর এই প্রতিষ্ঠান দেশকে শক্তি জুগিয়েছে। স্বাধীনতা আন্দোলনেও বিশ্বভারতীর অবদান রয়েছে। নব ভারতের নির্মাণে বিশ্বভারতী কাজ করে গিয়েছে।’

মোদি বলেন, ‘বিশ্বভারতী ভারতের শিক্ষাব্যবস্থাকে নতুন রূপ দিয়েছে। জ্ঞানের আন্দোলনে ক্রমাগত উৎসাহ জুগিয়েছে বিশ্বভারতী।’ ‘ভারতের পরম্পরা, রাষ্ট্রবাদ প্রচার করেছে গুরুদেবের বিশ্বভারতী। ভারতমাতা ও বিশ্বের মেলবন্ধন এই বিশ্বভারতী। আত্মনির্ভর ভারতের সূচনা কবিগুরুর কাছ থেকে।’ ‘ ভারতকে মজবুত-আত্মনির্ভর তৈরি করতে গেলে সবাইকে প্রয়োজন।’

ভিডিও বার্তায় মোদির ভাষণে উঠে আসে পৌষমেলার ও প্রসঙ্গে।ঐতিহাসিক পৌষমেলা নিয়ে তিনি বলেন, ‘পৌষ মেলা এবার বিশ্বভারতীতে হয়নি। পৌষ মেলা সরকারের ভোকাল ফর লোকাল স্লোগানের আক্ষরিক রূপ।’ ‘পৌষ মেলায় যাঁরা আসতে পারেননি, সেই শিল্পীদের নিয়ে উদ্যোগ নিন। এঁদের তৈরি পণ্য যাতে অনলাইনে বিক্রি করা যায়, তা দেখুন।’

ভিডিও বার্তায় মোদি মনে করিয়ে দেন, ‘সংস্কৃতি-সাহিত্যে ভরপুর এই বাংলা। পড়াশোনার পাশাপাশি প্রশিক্ষণ, দুই ভাবধারার জন্ম বিশ্বভারতীতে।’
‘দেশে যেন ভয়ের পরিবেশ না থাকে, জ্ঞান যেন মুক্ত হয়। নতুন জাতীয় শিক্ষানীতিতে মুক্ত জ্ঞানের কথা।’

তার বার্তায় গুজরাতের প্রসঙ্গ তুলে তিনি জানান গুজরাতের সঙ্গে গুরুদেবের গভীর যোগের কথাও এদিন মনে করিয়ে দেন মোদি। বলেন, ক্ষুধিত পাষাণের একটা অংশ গুজরাতে থাকাকালীন লেখা

সব শেষে তিনি যোগ করেন,- ‘কাউকে সঙ্গে না পেলেও ‘একলা চলো রে…’ এই মন্ত্রে বিশ্বাস করতে হবে।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?