Monday, May 17, 2021
Home রাজ্য পুরুলিয়া-বীরভূম-বাঁকুড়া অনুব্রত মন্ডলের ভোট প্রচারে একের পর এক আক্রমণ বিজেপিকে

অনুব্রত মন্ডলের ভোট প্রচারে একের পর এক আক্রমণ বিজেপিকে

বড়জোড়ার তৃণমূল প্রার্থী অলোক মুখার্জির সমর্থনে একটি কর্মীসভার আয়োজন করে মালিয়াড়া অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেস।

সোহিনী পোড়েল: বড়জোড়ার তৃণমূল প্রার্থী অলোক মুখার্জির সমর্থনে একটি কর্মীসভার আয়োজন করে মালিয়াড়া অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেস। কিভাবে ভোট পরিচালনা করবেন বুথ কর্মীদের সে বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেন তৃণমূল নেতারা। এই কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত থেকে বীরভূমের তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলও তাদেরকে বেশ কিছু টিপস দিয়ে বলেন, মা বোনেরা সবাই বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের বোঝান। যেন দিদিকেই ভোটটা দেন। কারণ এবারের ভোটটা মমতা ব্যানার্জির ভোট।

অনুব্রত মণ্ডল নরেন্দ্র মোদিকে অপদার্থ প্রধানমন্ত্রী বলে উত্তম মধ্যম দিয়ে বলেন, নরেন্দ্র মোদী মাস্টার লোক, ভয়ঙ্কর বুদ্ধিমান! ও আস্তে আস্তে দেশটাকে বিক্রি করে দিয়ে নীরব মোদীর মত দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাবেন। ওকে জিজ্ঞেস করলে উত্তর পাবেন ট্রেন বিক্রি করে দিলাম, প্লাটফর্ম বিক্রি করেছি। এলআইসি, বিএসএনএল, কোল ইন্ডিয়া বেচে দেব। ৪ টা ব্যাংক বিক্রি করে দিয়েছি। নরেন্দ্র মোদী জানেন বাংলায় অনেক জিনিস আছে বিক্রি করার। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো তা বিক্রি করতে দেবেন না। তাই বাংলার দিকে হাত বাড়িয়েছে নরেন্দ্র মোদী।

পেট্রোপণ্যের দাম বাড়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদির দাড়ি যত বাড়ছে, পেট্রোল ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের দাম তত বাড়ছে। প্রধানমন্ত্রীকে মিথ্যাবাদী বলে মন্তব্য করেন অনুব্রত মণ্ডল। তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদী দু’পকেট ভরে মিথ্যা কথা নিয়ে বাংলা দখল করতে আসছে। অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আঁচল ভরা উন্নয়ন দিয়ে বাংলাকে রক্ষা করছেন। ২০১৪ সালে বলেছিলে বছরের দু’কোটি চাকরি দেব! বেকারদের লোভ দেখিয়ে ক্ষমতায় এলে। এখন বলছ সোনার বাংলা গড়ব।

গুজরাটে প্যাটেলের নামে যে স্টেডিয়াম ছিল সেটা নিজের নামে করে নিলে। ওটা কি তোমার বাপের জমিদারি ছিল না তোমার দাদুর সম্পত্তি ছিল? তেমনি বাংলাকে নিজের নামে করে নিতে চাইছো। তা হতে দেবেন না ।

এরপর মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়নের ফিরিস্তি শুনিয়ে বলেন, এখন যে ৬৯ টা প্রকল্প চলছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না থাকলে সেগুলো বন্ধ হয়ে যাবে। রূপশ্রী, কন্যাশ্রী, সবুজ সাথী, স্বাস্থ্য সাথী, খাদ্যসাথী সব বন্ধ হয়ে যাবে। মমতা না থাকলে বাংলার সর্বনাশ হবে। বাংলায় অন্ধকার নেমে আসবে।

বড়জোড়ার দলীয় প্রার্থী অলোক মুখার্জী সম্পর্কে তিনি বলেন, দিদি যখন প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করছিলেন তখন অলোক মুখার্জির নাম বলেই বলেছিলেন অলোক হল মাটির ছেলে। সত্যিই অলোক মাটির ছেলে। ওকে জেতাতে হবে। বলেই কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, কি খেলা হবে তো! ভোটের দিন ভালো করে খেলতে হবে। শেষ পর্যন্ত খেলতে হবে। কিভাবে ভোট পরিচালনা করবেন বুথ কর্মীদের সে বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেন তৃণমূল নেতারা। এই কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত থেকে বীরভূমের তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলও তাদেরকে বেশ কিছু টিপস দিয়ে বলেন, মা বোনেরা সবাই বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের বোঝান। যেন দিদিকেই ভোটটা দেন। কারণ এবারের ভোটটা মমতা ব্যানার্জির ভোট।

অনুব্রত মণ্ডল নরেন্দ্র মোদিকে অপদার্থ প্রধানমন্ত্রী বলে উত্তম মধ্যম দিয়ে বলেন, নরেন্দ্র মোদী মাস্টার লোক, ভয়ঙ্কর বুদ্ধিমান! ও আস্তে আস্তে দেশটাকে বিক্রি করে দিয়ে নীরব মোদীর মত দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাবেন। ওকে জিজ্ঞেস করলে উত্তর পাবেন ট্রেন বিক্রি করে দিলাম, প্লাটফর্ম বিক্রি করেছি। এলআইসি, বিএসএনএল, কোল ইন্ডিয়া বেচে দেব। ৪ টা ব্যাংক বিক্রি করে দিয়েছি। নরেন্দ্র মোদী জানেন বাংলায় অনেক জিনিস আছে বিক্রি করার। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো তা বিক্রি করতে দেবেন না। তাই বাংলার দিকে হাত বাড়িয়েছে নরেন্দ্র মোদী।

পেট্রোপণ্যের দাম বাড়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদির দাড়ি যত বাড়ছে, পেট্রোল ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের দাম তত বাড়ছে। প্রধানমন্ত্রীকে মিথ্যাবাদী বলে মন্তব্য করেন অনুব্রত মণ্ডল। তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদী দু’পকেট ভরে মিথ্যা কথা নিয়ে বাংলা দখল করতে আসছে। অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আঁচল ভরা উন্নয়ন দিয়ে বাংলাকে রক্ষা করছেন। ২০১৪ সালে বলেছিলে বছরের দু’কোটি চাকরি দেব! বেকারদের লোভ দেখিয়ে ক্ষমতায় এলে। এখন বলছ সোনার বাংলা গড়ব।

গুজরাটে প্যাটেলের নামে যে স্টেডিয়াম ছিল সেটা নিজের নামে করে নিলে। ওটা কি তোমার বাপের জমিদারি ছিল না তোমার দাদুর সম্পত্তি ছিল? তেমনি বাংলাকে নিজের নামে করে নিতে চাইছো। তা হতে দেবেন না ।

এরপর মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়নের ফিরিস্তি শুনিয়ে বলেন, এখন যে ৬৯ টা প্রকল্প চলছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না থাকলে সেগুলো বন্ধ হয়ে যাবে। রূপশ্রী, কন্যাশ্রী, সবুজ সাথী, স্বাস্থ্য সাথী, খাদ্যসাথী সব বন্ধ হয়ে যাবে। মমতা না থাকলে বাংলার সর্বনাশ হবে। বাংলায় অন্ধকার নেমে আসবে।

বড়জোড়ার দলীয় প্রার্থী অলোক মুখার্জী সম্পর্কে তিনি বলেন, দিদি যখন প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করছিলেন তখন অলোক মুখার্জির নাম বলেই বলেছিলেন অলোক হল মাটির ছেলে। সত্যিই অলোক মাটির ছেলে। ওকে জেতাতে হবে। বলেই কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, কি খেলা হবে তো! ভোটের দিন ভালো করে খেলতে হবে। শেষ পর্যন্ত খেলতে হবে।

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

× How can I help you?